ট্রেনের জাল টিকিট বিষয়ে, বিভাগীয় বানিজ্যিক কর্মকর্তা, চট্টগ্রাম এর সতর্কতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:২২ AM, ২০ জুলাই ২০২১

বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনের জাল টিকেট বিষয়ে সতর্কতামূলক পোস্ট: সরকারের দেয়া লক ডাউন শিথিল করার প্রেক্ষিতে ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। নিরাপদ, আরামদায়ক ও গতিশীল ভ্রমণের আশা নিয়ে আপনি ট্রেনের টিকেট ক্রয় করেছেন। কিন্তু করোনা জনিত কারণে স্টেশনের কাউন্টার হতে টিকেট বিক্রি বন্ধ থাকায় আপনি হয়ত শরনাপন্ন হচ্ছেন বিভিন্ন দোকানে। এই সুযোগে কতিপয় দোকানদার জাল টিকেট আপনার হাতে ধরিয়ে দিয়ে আপনাকে ফেলছে বিপদে, রেল কর্মচারীদের করছে বিব্রত এবং নিজেরা করছে অবৈধ উপার্জন। কিন্তু আপনি একটু সতর্ক হলেই জাল টিকেট সনাক্ত করতে পারবেন এবং জাল টিকেট বিক্রেতাকে আইনের আওতায় সোপর্দ করতে পারবেন। উপায়গুলো আমি বলছি- ১) একটি Smart ফোন দ্বারা QR & Bar Code Scanner apps ব্যবহার করে অনলাইনে ক্রয়কৃত টিকেটে থাকা Bar Code টি Scan করে টিকেটে লেখা সিট নং, তারিখ, যাত্রারম্ভ স্টেশন ও গন্তব্য স্টেশন মিলিয়ে টিকেটের সত্যতা যাচাই করা যায়। ২) বর্তমানে এসি বার্থ ব্যতীত অন্যান্য শ্রেণির টিকেট কেবল বেজোড় সিট নং এর দেয়া হচ্ছে। তাই যদি কোন সিট নং (এসি বার্থ ব্যতীত) জোড় সংখ্যা হয় তাহলে আপনি নিশ্চিত থাকুন আপনার টিকেটটি জাল। ৩) রেলসেবা এ্যাপস ব্যবহার করে আপনি সহজেই টিকেট জাল কি না তা নিশ্চিত হতে পারবেন। রেলসেবা এ্যাপস এর Home এ গিয়ে Verify Ticket এ যাবেন এবং অনলাইন বা কাউন্টার বা অন্য কোথাও থেকে সংগৃহীত টিকেটখানায় দেয়া মোবাইল নং ও পিন নং দিয়ে আপনি টিকেটটি জাল কি না তা নিশ্চিত হতে পারবেন। ৪) দোকান বা কোন ব্যক্তির নিকট হতে টিকেট সংগ্রহ করে থাকলে তা যাত্রারম্ভ স্টেশনের টিকেট কাউন্টার হতে টিকেট প্রিন্ট করিয়ে নিতে হবে। যদি আপনার টিকেট জাল হয় তাহলে স্টেশনের কাউন্টার হতে টিকেট প্রিন্ট হবে না এবং আপনি যার দ্বারা প্রতারিত হয়েছেন তাকে আইনের আওতায় আনতে সমর্থ্য হবেন। যারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন স্থান হতে টিকেট ক্রয় করেছেন তাদের অনুরোধ করছি-যাত্রারম্ভ স্টেশনের কাউন্টার হতে টিকেট প্রিন্ট করে নিন টিকেট ক্রয়ে সতর্ক থাকুন, নির্বিঘ্নে ট্রেন ভ্রমণ করুন। নিজে জানুন, অন্যকে জানিয়ে দিন।

জনসচেতনতায় বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি

আপনার মতামত লিখুন :