ঢাকা ২৪ জুন, ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম
৮ জুলাই চীন সফরে যেতে পারেন প্রধানমন্ত্রী ছাগলকাণ্ডের সেই মতিউরের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা মেজর জিয়াসহ ৪ আসামির বিচার শুরু, ৫ জনকে অব্যাহতি ‘প্রযুক্তিজ্ঞান ছাড়া দেশ বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারে না’ অ্যান্টিগায় নীরবতা নামিয়ে সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকা দুর্নীতিতে অভিযুক্তের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞার নির্দেশ পেলে ব্যবস্থা ‘সম্পদের পাহাড়’ ছেড়ে আত্মগোপনে ছাগলকাণ্ডের মতিউরের স্ত্রী রাশিয়ার দাগেস্তানে ভয়াবহ হামলা, নিহত অন্তত ১৫ পুলিশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা ভারত বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী-বিশ্বস্ত বন্ধু

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীকে মারধর অভিযোগ

#

নিজস্ব প্রতিবেদক

০১ আগস্ট, ২০২৩,  11:46 AM

news image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসা সেবা নিতে গিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মারধরের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। আহত ওই শিক্ষার্থীর নাম সৌরভ দাশ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী। অপরদিকে ইভটিজিং এর শিকার হয়েছেন বলে প্রক্টর অফিসে পাল্টা অভিযোগ দিয়েছেন ছাত্রলীগ কর্মী সামিরা মাহমুদ মিথী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে ক্যাম্পাসে মেডিকেল সেন্টারে সেবা নিতে এসে চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ কর্মী সামিরা মাহমুদ মিথী এবং রিসাত আরার সঙ্গে ওই শিক্ষার্থীর কথা কাটাকাটির হয়। এক পর্যায়ে বাকবিতন্ডতার মধ্যেই ওই শিক্ষার্থীকে টেনেহিঁচড়ে বাহিরে নিয়ে মারধর করেন তারা।

আহত শিক্ষার্থী সৌরভ দাশ জানান, আমি মেডিকেল সেন্টারে প্রেসার মাপতে গেছিলাম। তখন দর্শন বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের রিসাত আরা নামের একজন শিক্ষার্থী আমাকে চেয়ার থেকে উঠতে বলেন। আমি তাকে আমার দেখানোর পরে বসতে বলি এতে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে আমার উপর চড়াও হন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ওই আপু আমাকে বাহিরে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর বেশ কয়েকজন বড় ভাই এসে কয়েক দফায় আমাকে মারধর করেন।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী আরো জানান, ইকবাল মাহমুদ রানা, সৈকত, মিনন মাহফুজ, মিরাজ হোসাইন, সজীব বুদ্ধসহ আরও বেশ কয়েকজন তাকে মারধর করেন।
অপরদিকে সামিরা মাহমুদ মিথী তার অভিযোগপত্রে বলেন, আমি শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় আমাদের মেডিকেল সেন্টারে যাই সেখানে আমি এবং আমার এক জুনিয়র রিসাত আরা (১৪ বাচ, দর্শন বিভাগ), ১৬তম ব্যাচের রসায়ন বিভাগের সৌরভ নামের এক ছেলের দ্বারা প্রথমত বেয়াদবি মূলক আচরণ পাই, তাপর অকথ্য ভাষায় গলাগালি এবং যৌন-
হয়রানি মূলক ইঙ্গিত দেয়, সাথে তোকে দেখে নিবো এরকম হুমকি প্রদান করে৷  আমি ১২তম ব্যাচ জানার পরেই তোকে খেয়ে ফেলবো ব্যাচ জানার প্রয়োজন নেই এমন ভাষায় কথা বলে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আকতার হোসেন বলেন, আমাদের দু'জন ছাত্রীর সাথে ইভটিজিং করায় তখন কথার কাটাকাটি হলে ঘটনার সূত্রপাত হয়। জগন্নাথে আমরা যারা ছাত্র প্রতিনিধিত্ব করছি ক্যম্পাসে রেগ ডে, ছাত্রী বোনদের ইভটিজিং ও যৌন হয়রানি বিরুদ্ধে অনেক আন্দোলন করেছি। আমরা ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে বলতে চাই যারা আমাদের ছাত্রী বোনদের সাথে অশোভন আচরন করবে। এই নিয়ে আমাদের প্রশাসন যা ব্যবস্থা নিবে তার সাধুবাদ জানাবো এবং এরকম কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা যেন আর না ঘটে তাই ক্যম্পাসে সুস্থ্য পরিবেশ বজায় রাখার জন্য আমরা চেষ্টা করব। হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, এই বিষয়ে আমার কাছে কোন অভিযোগ আসে নাই প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দিলে প্রশাসন তদন্ত করে ব্যাবস্থা নিবে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা তাকে (সৌরভ) আহত অবস্থায় পেয়েছি। প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে আসি। আমরা অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যাবস্থা নিবো।

logo
সম্পাদক ও প্রকাশক মো: মনিরুজ্জামান মনির